News From Manikgonj in Bangla


মানিকগঞ্জ শহরের প্রবেশ পথ আন্ধারমানিক-বেওথা সড়কটির বেহাল দশা


মানিকগঞ্জ শহরের প্রবেশ পথ আন্ধারমানিক-বেওথা সড়কটির বেহাল দশা

রিপন আনসারী,মানিকগঞ্জ থেকে

চারটি উপজেলার সাথে মানিকগঞ্জ জেলা শহরের যোগাযোগের অন্যতম প্রবেশ পথ আন্ধারমানিক-বেওথা সড়কটির বেহাল দশা। একটু বৃষ্টি হলেই এই পথে যাতায়ত করা মানুষের ভোগান্তি বেড়ে যায়। বৃষ্টির পানির সাথে যানবাহনের চাকায় একাকার হয়ে ক্ষত বিক্ষত হয়ে পড়েছে সড়কের প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তা। কাগজে কলমে রাস্তাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগের অধিনে থাকলেও দেখভাল করে যাচ্ছে মানিকগঞ্জ পৌর সভা।

সরজমিন আন্ধারমানিক থেকে বেওথা সেতু পর্যন্ত ঘুরে দেখা যায় রাস্তার বেশ কয়েক জায়গায় বৃষ্টির পানি আর খানাখন্দরে ক্ষত বিক্ষত হয়ে গেছে। এতে হরিরামপুর,ঘিওর,দৌলতপুর ও শিবালয় উপজেলার মানুষের যাতায়াত চরম ভাবে ব্যহত হচ্ছে। ছোট গাড়ি রিকসা,সিএনজি, হ্যালো বাইক,মোটর সাইলেক,প্রাইভেকটার,মাইক্রোবাস গুলো অত্যন্ত ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে। তার মধ্যে নিয়ম নীতির তোয়াক্কা কিংবা কোন ধরনের রুট পারমিট না থাকলেও ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিপুল সংখ্যক বড় বড় যানবাহন এই রুট ব্যবহার করে সিংগাইর-হেমায়েতপুর হয়ে ঢাকা যাচ্ছে। যার কারনে বড় বড় সেসব গাড়ির চাকায় রাস্তাটি ভেঙ্গে খানাখন্দরের সৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টিতে জমে থাকা হাটু পানির ভেতর খানাখন্দও থাকায় ছোট ছোট যানবাহন গুলো মাঝে মধ্যে উল্টে যানমালের ক্ষতি হচ্ছে। এছাড়া প্রায় এক কিলো মিটার রাস্তায় ড্রেনেজের কোন ব্যবস্থা না থাকায় রাস্তাটি সামান্য বৃষ্টি হয়েই পানিতে নিমজ্জিত হয়ে পড়ে।

এলাকার বাসিন্দা মো. রেজাউল করিম বলেন, রাস্তাটি বর্তমানে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। প্রতিদিন মহাসড়কের বড় বড় অনেক যানবাহন এই রাস্তাটি ব্যবহার করায় বিভিন্ন জায়গা ভেঙ্গে গেছে এবং সাথে বৃষ্টির পানির কারনে খানাখন্দরের সৃষ্টি হয়েছে। মহাড়কের যানবাহন গুলোকে এই রুট দিয়ে চলাচল বন্ধ করা না হলেও যতই রাস্তাটি মেরামত করা হোক না কেনো তা টিকবে না। এছাড়া ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় সামান্য বৃষ্টির পানিতে রাস্তাটি নিমজ্জিত হয়ে পড়ে। দ্রুত রাস্তাটি সংস্কারের দাবি এলাকাবাসীর।

মানিকগঞ্জ পৌর সভার ৮ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবু মো. নাহিদ বলেন, রাস্তাটি পৌর এলাকায় হলেও মুলত সড়ক ও জনপদ বিভাগের অধিনে রয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলে প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তার কয়েকটি জায়গায় পানি উঠে পড়ে এবং ভেঙ্গে যায়। আমাদের পৌর সভা থেকে মাঝে মধ্যেই ইটের খোয়া ও মাটি ফেলে মেরামতের চেষ্টা করলেও বৃষ্টি এবং বড় বড় গাড়ি যাতায়াত করা তা টিকে না। মহাসড়কের বড় বড় গাড়ি গুলো এই রুট ব্যবহার করায় রাস্তাটি টিকিয়ে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। আসলে এই রাস্তাটিকে বাইপাস হাইওয়ে রাস্তা হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। মহাসড়কের বড় বড় গাড়ি গুলো এই রুটে যাতায়াত বন্ধের জন্য বিগত দিনে জেলা প্রশাসকের কাছে একধিক অভিযোগ করেছিলাম। কিছু দিন সাময়িক বন্ধ থাকলেও পরে আবার অবাধে চলাচল করছে। তবে আমারা সড়ক ও জনপদ বিভাগে কাছে রাস্তাটি মেরামতের লিখিত অনুরোধ করেছি। তারা আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *





related stories


error: Content is protected !!